গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় করুন মাসে 5000 ডলার। গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? কীভাবে শুরু করবেন

বর্তমানে অনেকেই অনলাইন ইনকাম এর পেছনে ছুটছেন। অনেকেই বিভিন্নভাবে বিভিন্ন জায়গায় খুঁজছেন যে অনলাইনে কি কাজ করে আয় করা যায়। আবার অনেকে প্রশ্ন করেন অনলাইনে ইনকামের জন্য কোন কাজটি সবচেয়ে ভালো হবে। আবার অনেকে বলছেন অনলাইনে ইনকাম করার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখলে কেমন হয়।

তো বন্ধুরা আজকের এই টিউটোরিয়ালে আমি আলোচনা করছি, গ্রাফিক ডিজাইন কি? গ্রাফিক ডিজাইন এর বর্তমান ডিমান্ড কেমন? এই সময়ে অনলাইনে ইনকাম করার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখা টা কেমন হয়? এছাড়াও রয়েছে গ্রাফিক ডিজাইনারদের জন্য চাকরি কোথায় পাওয়া যায়? কত টাকা বেতন এবং মাসে কত টাকা আয় করা যায়? এ সব খুঁটিনাটি সকল বিষয়।

গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় করার উপায়
গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় করার উপায়

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি  (What is graphic design)

একেবারে সহজ ভাষায় বলতে গেলে গ্রাফিক ডিজাইন হলো ট্যাক্স এবং ইমেজের কম্বিনেশনে পুরো ডিজাইন তৈরি করা। যে ডিজাইন গুলো বিভিন্ন বিজ্ঞাপন কম্পানি লোগো এবং কোম্পানির প্রচার প্রচারণার জন্য ব্যানার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। অর্থাৎ কোন ছবি, সংকেত চিহ্ন,  বিভিন্ন সেপ এবং লেখার কম্বিনেশনে তৈরি ডিজাইনই গ্রাফিক ডিজাইন।

সহজ করে বলতে গেলে গ্রাফিক্স ডিজাইন হচ্ছে কোন ছবি, ডিজাইন, লোগো, এবং স্লোগান/ট্যাক্স এর কম্বিনেশনে তৈরি নান্দনিক ও আকর্ষণীয় ডিজাইন। যারা বিভিন্ন কম্পানি প্রমোশন এবং বিজ্ঞাপন কাজ করা হয়।

গ্রাফিক্স ডিজাইন জব  (graphic design jobs)

এখন কথা হল ও যদি আমি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখি তাহলে কি ধরনের কাজ করতে পারব। বা গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে কোথাও চাকরি করতে পারব কিনা। বর্তমান মার্কেটপ্লেসে এর চাহিদা কেমন। এক কথায় বলতে গেলে বর্তমান বাজারগুলোতে গ্রাফিক ডিজাইনারদের চাহিদা অনেক ভালো। এবং একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার অনায়াসেই একটি ভাল মানের চাকরি করতে পারে। এ ব্যাপারে আরও বিস্তারিত এখানে আলোচনা করা হয়েছে।

গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর চহিদা The demand of Graphics Designer

গ্রাফিক ডিজাইন এর চাহিদা বিবেচনা করতে গেলে বর্তমান মার্কেটপ্লেসগুলোতে অন্যান্য কাজকর্মের তুলনায় এর ভ্যালু তুলনামূলক বেশি। একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার ঘরে বসে তার চাকরির পাশাপাশি এবং অন্যান্য কাজ করবে পাশাপাশি বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজ করে উপার্জন করতে পারে।

এছাড়াও চাইলে একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার খুব সহজেই ভালো কোন কোম্পানিতে অথবা কোন আইটি সেকশনে অথবা কোন প্রমোশনাল ব্র্যান্ডিং কোম্পানিতে চাকরি নিতে পারে।

বর্তমানে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন, লোগো, পোস্টার, ফ্লায়ার ইত্যাদির কাজগুলো গ্রাফিক ডিজাইনাররা করে থাকেন। একজন প্রফেশনাল বা এক্সপার্ট গ্রাফিক ডিজাইনারের চাহিদা বর্তমান মার্কেটপ্লেসে তুঙ্গে রয়েছে। এবং একজন এক্সপার্ট গ্রাফিক ডিজাইনার উচ্চমানের বেতনে চাকরি করে থাকে।

বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে গ্রাফিক ডিজাইন এর মূল্য বা কাজের চাহিদা নিম্নরূপঃ

What is graphics design
What is graphics design

গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর বেতন কত  (graphic designer salary)

একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর স্যালারি কত হতে পারে। বন্ধুরা এটা নির্ভর করবে একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনারের কর্মদক্ষতা এবং তাঁর অভিজ্ঞতার উপর। তবে গ্রাফিক ডিজাইনারদের চাহিদা বর্তমান মার্কেটে অনেক বেশি এবং তুলনামূলকভাবে এর কম্পিটিশন এবং অনেক বেশি।

বর্তমানে graphic-designer অনেক পরিমাণে হওয়ার কারণে গাছ পাওয়া কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে একজন এক্সপার্ট গ্রাফিক্স ডিজাইনার কখনো বসে থাকে না। দিনের-পর-দিন মাসের-পর-মাস ইনকাম করে যাচ্ছেন।

দক্ষতা অনুযায়ী একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর স্যালারি 40 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। তবে যারা বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজ করে থাকেন তারাও প্রতি মাসে 30 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকেন।

একটা মজার বিষয় হল যারা এই সেকশনে কাজ করছেন তারা বেশিরভাগই ফিক্সট সেলারি কাজ না করে বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে ফ্রিল্যান্সিার হিসেবে কাজ করে থাকেন। নির্ধারিত বেতন এর চাকরি করার থেকে বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে একজন গ্রাফিক ডিজাইনার ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তবে মনে রাখতে হবে এই কাজটি অবশ্যই।

demand of graphics design
demand of graphics design

গ্রাফিক্স ডিজাইন জব কোথায় পাবেন (Where get Graphics design Job)

এতক্ষণ আমরা জানলাম গ্রাফিক ডিজাইনে চাহিদা এবং গ্রাফিক ডিজাইন এর বর্তমান মার্কেটে বেতন কেমন হয়। এখন কথা হচ্ছে আপনি যদি একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হন তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ কোথায় পাবেন।

আপনি শুধুমাত্র একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হলেই হবেনা আপনাকে জব করতে হবে তারপর আপনি পেমেন্ট পাবেন তাই না?

যাইহোক বর্তমান বাজারে গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর প্রচুর মারকেটপ্লেস রয়েছে আপনারা চাইলে যেকোনো একটি মার্কেটপ্লেসে যুক্ত হয়ে ঘরে বসে ফ্রি-লেন্সিং এর মাধ্যমে আয় করতে পারেন।

একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনারের সবচেয়ে প্রথম পছন্দ হলো ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করা। কেননা ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে কাজ করলে নানান সুবিধা পাওয়া যায় যা একটি অফিসে কাজ করলে পাওয়া সম্ভব নয়।

গ্রাফিক ডিজাইনারদের জন্য জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস গুলো হলঃ

  • ফাইভার (fiverr.com)
  • ফ্রিল্যান্সার (Freelancer.com)
  • আপওয়ার্ক (Upwork.com)
  • পিপল পার আওয়ার (peopleperhour.com)
  • 99 ডিজাইন (99designs.com)
  • গ্রাফিক রিভার (graphicriver.net)
  • শাটারস্টক (shutterstock.com)
  • হাটচওয়াইজ  (hatchwise.com)
  • ডিজাইন ক্রাউড (designcrowd.com)
  • আর্ট ওয়েব (artweb.com)
  • ডিজাইন হিল (designhill.com)
  • সোসাইটি সিক্স (society6.com)

এখানে যে মার্কেটপ্লেসগুলোর আলোচনা করা হল এছাড়াও প্রচুর মার্কেটপ্লেস রয়েছে। আপনারা চাইলেই মার্কেটপ্লেসগুলোতে নিজের অ্যাকাউন্ট করে সেখানে অনায়াসে কাজ করতে পারেন।

এছাড়াও আপনি চাইলে একজন ডিজাইনার হিসেবে আপনার আশেপাশে কোন আইটি প্রতিষ্ঠান বা কোন ডিজাইন রিলেটেড প্রতিষ্ঠানে যুক্ত হয়ে সরাসরি চাকরি করতে পারেন।

গ্রাফিক ডিজাইনের জন্য উপযুক্ত কিছু কোম্পানি হলো:

  • প্যাকেজিং ফার্ম
  • ডিজাইন ফার্ম
  • বিজ্ঞাপন ও প্রিন্টিং মিডিয়া
  • ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট মিডিয়া

ইত্যাদি রিলেটেড যে কোন কোম্পানিতে একজন ডিজাইনার হিসেবে চাকরি করতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সে কোম্পানিতে কাজের প্রমান দেখিয়ে উপযুক্ত হয়ে চাকরি নিতে হবে। তবে হ্যাঁ আপনি যদি ভাল মানের ডিজাইনার হন তাহলে এগুলো চাকরী আপনার জন্য কোন ব্যাপারই না।

গ্রাফিক ডিজাইন করে ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে অবশ্যই আপনাকে মনে রাখতে হবে, “graphic design is my passion ”

কোথায় শিখবেন গ্রাফিক্স ডিজাইন graphic design courses

আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চান তাহলে আপনাকে গ্রাফিক ডিজাইন সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে আর তার জন্য প্রয়োজন হবে একটি সঠিক গাইডলাইন। গ্রাফিক ডিজাইন এর গাইডলাইন এর জন্য আপনি নিচের ধারাবাহিক বর্ণনাগুলো ভালভাবে দেখে তারপর সিদ্ধান্ত নিন আপনি কিভাবে গ্রাফিক ডিজাইন শিখবেন।

আমি এখানে গ্রাফিক ডিজাইনের উপর বিভিন্ন কোর্স নিয়ে আলোচনা করব। যার মধ্যে অন্যতম, গ্রাফিক ডিজাইন ফ্রি কোর্স গ্রাফিক্স ডিজাইন পেইড কোর্স , গ্রাফিক্স ডিজাইন অনলাইন কোর্স এবং গ্রাফিক ডিজাইন অফলাইন কোর্স সম্পর্কে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন ফ্রি কোর্স (Graphics Design Free Course):

গ্রাফিক ডিজাইন ফ্রি কোর্স দ্বারা বোঝানো হয়েছে, যেখানে আপনার কোন টাকা খরচ হবে না।  ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন। তবে এ মাধ্যমটি একটু জটিল ও সময় সাপেক্ষ। তবে মজার বিষয় হচ্ছে আপনি যদি ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান তাহলে একটি কোচিং সেন্টারে যে পরিমাণে কাজ শিখতে পারবেন তার চেয়ে অনেক বেশী কাজ শিখতে পারবেন।

কেননা একটি কোচিং সেন্টার বা পেইড কোর্সের মধ্যে তারা নির্ধারিত কিছু কাজ শেখাবে এর বাইরের কাজ গুলো আপনাদের যাচাই-বাছাই করে ঘাটাঘাটি করে নিজেদের করতে হবে। আর যখন আপনি ফ্রিতে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল দেখে শিখতে যাবেন তখন আপনাকে ছোট-বড় অনেক কাজ করতে হবে। সেজন্য আপনি অনেক বেশি কাজ শিখতে পারবেন। আর এক্ষেত্রে আপনার সময়টা অনেক বেশি লাগবে।

কিভাবে ফ্রি কোর্স করবেন:

  • ইউটিউবে গ্রাফিক ডিজাইন এর ওপর প্রচুর ফ্রী কোর্স রয়েছে আপনি সেগুলো ফলো করবেন।
  • অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স পাওয়া যায়।
  • এছাড়াও আপনি চাইলে আপনার বন্ধুদের কাছ থেকে বা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে অনেক পেইড কোর্স ফ্রিতে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।
  • গুগলে সার্চ করে গ্রাফিক ডিজাইনে ফ্রি কোর্স পেতে পারেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন পেইড কোর্স Graphics Design Paid Course:

গ্রাফিক ডিজাইন পেইড কোর্স হলো যেখানে টাকার বিনিময়ে আপনাকে গ্রাফিক ডিজাইন শেখানো হবে। এটি অনলাইন এবং অফলাইন দুইটাই হতে পারে। গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স করতে হলে আপনার আশেপাশে যেখানে ট্রেনিং সেন্টার আছে আপনি কি সরাসরি সেখানে ভর্তি হয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন। অথবা আপনি যেকোনো গ্রাফিক ডিজাইন কোচিং সেন্টারে ভর্তি হয়ে অনলাইনের মাধ্যমে কোর্স করে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন।

এটা সম্পূর্ণ নির্ধারণ করবে আপনি যেখানে করবেন সেই কর্তৃপক্ষ।  এখন আপনার মনে অবশ্যই প্রশ্ন এসেছে যে গ্রাফিক ডিজাইন এর কোর্স ফি বা গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কত টাকা খরচ হবে?এটা গ্রাফিক ডিজাইন এর জন্য বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন রকম ফি নির্ধারণ করে থাকে। সাধারণত গ্রাফিক ডিজাইনের কোর্সগুলো 5000 টাকা থেকে শুরু করে 50000 হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন এর অনলাইন কোর্স (Graphics Design Online Course):

গ্রাফিক ডিজাইনে অনলাইন কোর্স বলতে বোঝানো হয়েছে যেকোর্সগুলো আপনি ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে করতে পারবেন। বিভিন্ন ট্রেনিং সেন্টার তাদের কোর্সগুলো বিভিন্ন ভিডিও কনফারেন্স বা সফটওয়্যার এর মাধ্যমে অনলাইনে থাকেন।

অনলাইন কোর্স দুইভাবে হয়ে থাকে:

লাইভ কোর্স: লাইভ কোর্স এর জন্য সময় নির্ধারণ করা থাকে প্রতিদিন সেই সময় আপনার কোর্স সম্পন্ন করা হবে। এবং সেটি সরাসরি মেন্টর আপনাকে লাইভ কনফারেন্সের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেবে। এবং এই কোর্স গুলো সাধারণত রেকর্ডিং করে থাকে এবং পরবর্তীতে সেই ভিডিওটি আপনাদেরকে প্রোভাইড করবে যাতে আপনারা পুনরায় রিভাইজ করতে পারেন।

প্রি-রেকর্ডেড কোর্স: প্রি- রেকর্ডেড কোর্স হলো গ্রাফিক ডিজাইন এর ওপরে পূর্বের রেকর্ড করা ভিডিও আকারে কোর্স করা থাকবে, আপনি যখন সেই কোর্স ক্রয় করবেন আপনাকে কিছু ভিডিও দিয়ে দেয়া হবে আপনি সেই ভিডিওগুলো দেখে দেখে গ্রাফিক ডিজাইন শিখবেন। এক্ষেত্রে আপনার মনে অনেক প্রশ্ন জাগতে পারে আপনি পরবর্তীতে সে প্রশ্নগুলোর উত্তর নাও পেতে পারেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন অফলাইন কোর্স (Graphics Design Offline Course):

অফলাইন কোর্স হলো, আশেপাশে কোচিং সেন্টারে যে সমস্ত কোর্স করা হয় সেগুলো কে বোঝানো হয়েছে। আবার এটাকে Graphics Design Course on Coaching Center হিসেবেও বিবেচনা করা যায়। অর্থাৎ যে করি আপনাকে কোন কোচিং সেন্টারে গিয়ে সশরীরে করতে হবে, এবং এর কোন অনলাইন ভার্সন থাকবে না সেটি হচ্ছে অফলাইন কোর্স।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখার খরচ (Cost of Graphics design Courses)

আমি এটা ইতিমধ্যে আলোচনা করেছি, আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন ফ্রিতে বা টাকা খরচ করে দুই ভাবে শিখতে পারবেন। আপনি যদি ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে বেশি সময় ব্যয় করতে হবে। আর যদি কোন কোচিং সেন্টারে গিয়ে শিখতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে পাঁচ হাজার টাকা থেকে শুরু করে 50 হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হবে এবং এক্ষেত্রে আপনার সময় একটু কম লাগবে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কতদিন সময় লাগে (How much time spend learning graphic design)

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কতদিন সময় লাগবে এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনি প্রতিদিন কতটুকু সময় বের করছেন গ্রাফিক ডিজাইন শেখার জন্য। এছাড়াও এখানে আরো একটি উল্লেখ্য বিষয় যে আপনি কোথায় থেকে গ্রাফিক ডিজাইন শিখছেন তারা কতদিন আপনাকে শেখাবে। গ্রাফিক ডিজাইন এর বিভিন্ন কোর্সের জন্য একটি ডিউরেশন নির্ধারণ করা থাকে, যেমন- তিন মাস, ছয় মাস বা এক বছর।

এখানে একটি বিষয় উল্লেখ্য যে, আপনি যত বেশি সময় ব্যয় করবেন আপনি তত বেশি বিষয়ে জানতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান সেক্ষেত্রে আপনার সময় এমনিতেই একটু বেশি লাগবে। কেননা আপনাকে প্রচুর ঘাটাঘাটি করতে হবে এবং খুঁটিনাটি অনেক বিষয় জানতে হবে। যা একটি ট্রেনিং সেন্টারে খুব সহজেই শিখতে পারতেন।

** গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে নরমালি  6 মাস থেকে 1 বছর সময় লাগতে পারে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার  (graphic design software)

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে হলে অবশ্যই কিছু সফটওয়্যার এর কাজ শিখতে হবে। শুধুমাত্র কম্পিউটার থাকলেই গ্রাফিক ডিজাইন শেখা সম্ভব না গ্রাফিক ডিজাইনের জন্য জনপ্রিয় কিছু সফটওয়্যার হল:

Adobe Photoshop: এডোবি ফটোশপ গ্রাফিক্সের জন্য অন্যতম একটি সফটওয়্যার। এ সফটওয়্যারটি দিয়ে গ্রাফিক্সের যেকোনো কাজ করা সম্ভব। এডোবি ফটোশপ এডিটিং সফটওয়্যার। সফটওয়্যার দিয়ে যেকোনো একটি ডিজাইনকে ভেঙে অন্যরূপে সম্ভব। যেকোনো ডিজাইনকে আরো নান্দনিক করে তুলতে এই সফটওয়্যার এর তুলনা হয়না।

Adobe Illustrator: এডোবি ইলাস্ট্রেটর হল একটি ক্রিয়েটিভ সফটওয়্যার। এই সফটওয়ারের মাধ্যমে যেকোনো একটি ডিজাইনকে ডিজিটালাইজড করা সম্ভব। অর্থাৎ যে কোন স্ক্রেস, ড্রয়িং কোন ডিজাইন থেকে স্টোক বা ভিক্টর আকারে করা সম্বভ। তাছাড়াও এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে যে কোন ডিজাইন ai. EPS ও অন্যান্য ফরমেটে করা যায়। যা যত ইচ্ছা তত জুম দিলেও ডিজাইনের কোন ত্রুটি হয়না।

Adobe Indesign: এটিও একটি অন্যতম ডিজাইন সফটওয়্যার। এটি দ্বারা সাধারণত ক্যালেন্ডার, বই, কার্ড বা যে কোন প্রেস/ মিডিয়ার ডিজাইন করা হয়।

Corel draw: এ সফটওয়্যারটির দাঁড়াও যেকোনো গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো, প্রিন্টেড ডিজাইন ইত্যাদির কাজ করা হয়।

এছাড়া মার্কেটে প্রচুর গ্রাফিক ডিজাইন এর সফটওয়্যার রয়েছে। আপনি গ্রাফিক্স এ সেক্টরে যে রিলেটেড কাজ করতে চান সেই রিলেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করেই আপনাকে গ্রাফিক ডিজাইন এর কাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন: গ্রাফিক্স ডিজাইন সফওয়্যার সমূহ: কোন কাজের জন্য কোন সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়।

গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর জন্য কি কি প্রয়োজন:

গ্রাফিক ডিজাইন সম্পর্কে তোমার কি ধারনা পেয়েছি এখন কথা হচ্ছে আপনি যদি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হন তাহলে আপনার কি কি জিনিসের প্রয়োজন রয়েছে বাকি বিষয়গুলো আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে।

মার্কেটপ্লেসে টিকে থাকার জন্য একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনারের যে জিনিস গুলো অবশ্যই প্রয়োজন তা হল: গ্রাফিক ডিজাইন পোর্টফলিও, এবং গ্রাফিক ডিজাইন পোর্টফলিওতে কি কি থাকবে কেন গ্রাফিক ডিজাইন পোর্টফলিও দরকার?

গ্রাফিক্স ডিজাইন পোর্টফলিও ( graphic design portfolio):

প্রথমেই জেনে নেয়া যাক ডিজাইন এর পোর্টফলিও কি? পোর্টফোলিও হল একটি নমুনা ওয়েবসাইট, আপনি যে গ্রাফিক ডিজাইন করেন কি ধরনের ডিজাইন করছেন সেই ডিজাইন গুলিকে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখার জন্য একটি শোকেসই হলো পোর্টফলিও।

আপনার পোর্টফলিওতে আপনি যে যে ক্যাটাগরির ডিজাইন করে থাকেন সে ক্যাটাগরি অনুযায়ী কিছু নমুনা ডিজাইন আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এ সাজিয়ে রাখতে হবে। যেন একজন বায়ার আপনার পোর্টফোলিও গুলো দেখে আপনার ডিজাইন সম্পর্কে পুরোপুরি ধারণা পেতে পারে।

কেন পোর্টফলিও দরকার (Why need a portfolio):

আপনার একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট দরকার তার কারণ হলো, যখন আপনি বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজ করবেন এবং কোন বায়ার আপনার  ডিজাইন সম্পর্কে জানতে চাইবে তখন আপনি আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এর লিঙ্ক বায়ারকে দিয়ে দিলেই ভাইয়ের আপনার সকল পোর্টফলিও ডিজাইনগুলো দেখে সিদ্ধান্ত নেবে আপনি কাজের উপযুক্ত কিনা।

একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে নিজের দক্ষতা কে খুব সুন্দরভাবে সহজেই যেকোনো বাইরের সামনে তুলে ধরা যায়। আর যদি আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট না থাকে সে ক্ষেত্রে বায়ারকে একটি একটি করে ডিজাইন পাঠাতে হবে এবং সেগুলো খুঁজে খুঁজে দেখবে তারপর সিদ্ধান্ত নেবে আপনি কাজের উপযুক্ত কিনা। এক্ষেত্রে যে কোন বায়ার বোরিং ফিল করতে পারে। তাই আপনার একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট অবশ্যই দরকার।

 কিভাবে পোর্টফলিও ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

How to design a graphic design portfolio। একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে শুধুমাত্র একটি ডোমেইন রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে এবং একটি হোস্টিং কিনতে হবে। তারপর ওয়াডপ্রেস বাজে কোন সে মেস ব্যবহার করে আপনি নিজেও একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট তৈরী করে নিতে পারেন। আর যদি ওয়েবসাইট তৈরি করতে আপনার কোনো অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে আপনি চাইলে অল্প খরচে যেকোনো ডেভলপার দিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারেন।

এছাড়াও আমাদের এই রিসোর্টটি পড়তে পারেন- কিভাবে একটি পোর্টফলিও ওয়েবসাইট তৈরি করবেন। 

পোর্টফলিও ওয়েবসাইট কি কি সেকশন থাকবে:

(Which section place a portfolio site)

নিজের প্রোফাইল: একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এ প্রধানত যে বিষয়টি থাকবে সেটি হচ্ছে আপনার প্রোফাইল। এটি ইম্পরট্যান্ট একটি বিষয়। অনেকেই তাদের পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট শুধুমাত্র তাদের কাজের নমুনা দিয়ে থাকে কিন্তু নিজের সম্পর্কে কোন বায়ু ডাটা বা প্রোফাইল ঠিকমতো সাজিয়ে রাখে না, এটা ভুলেও করবেন না।

কেননা যে কেউ আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এ এসে আপনার সম্পর্কে আগে জানতে চাইবে। তারপর আপনার কাজের নমুনা দেখবে।

কাজের নমুনা: অতঃপর সুন্দর করে সাজিয়ে আপনি যে যে ক্যাটাগরির কাজ করেন সেই সেই ক্যাটাগরিতে কাজের নমুনা গুলো সুন্দর করে সাজিয়ে রাখুন।

কন্টাক্ট ইনফোঃ অতঃপর যে জিনিসটি অবশ্যই রাখতে হবে সেটি হলো আপনার সাথে যোগাযোগের ব্যবস্থা। আপনার পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এ আপনার সাথে যোগাযোগ করার জন্য যতগুলো সম্ভব মাধ্যম যুক্ত করুন। সব সময় চেষ্টা করবেন সরাসরি যোগাযোগ করার কোন ব্যবস্থা যুক্ত করে রাখতে। যেমন- হোয়াটসঅ্যাপ, টেলিগ্রাম, ফেসবুক মেসেঞ্জার, ইমেইল এড্রেস, ফোন নাম্বার ইত্যাদি।

গ্রাফিক্স ডিজাইন ট্রেন্ডস ( graphic design trends 2021)

গ্রাফিক ডিজাইন ফ্রেন্ড হলো বর্তমান সময়ের সাথে যুগোপযোগী ডিজাইন করে মার্কেটপ্লেসে টিকে থাকা। বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে অন্যান্য ডিজাইনাররা যে সমস্ত ট্রিক্স অবলম্বন করে ঠিক আছে আপনাকে সেটা জানতে হবে। এবং সবসময় চেষ্টা রাখতে হবে যাতে অন্যদের চেয়ে একটু ভিন্ন কায়দায় আপনার কর্মদক্ষতাকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে কেমন ডিজাইন মার্কেটে চাহিদা রয়েছে সেইসব ডিজাইন নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করুন। আপনি কিছু ডিজাইন সম্পর্কে ধারণা নিয়ে মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে গিয়েছেন। কিন্তু সেই ডিজাইন বা আইডিয়া গুলো পুরাতন হয়ে গিয়েছে এরপর অনেক নতুন নতুন ফরমুলা চলে এসেছে তাই পুরাতন ফর্মুলা গুলো বাদ দিয়ে নতুন ফর্মুলা এগিয়ে যান।

অবশ্যই গ্রাফিক ডিজাইন করে মার্কেটপ্লেসের টিকে থাকতে হলে, মার্কেটপ্লেসে ডিজাইনের নতুন ট্রেন্ড সম্পর্কে অবশ্যই অবশ্যই ধারনা রাখতে হবে এবং নতুন ফর্মূলা মাথায় রাখতে হবে।

সর্বপরি আমাদের পরামর্শঃ

গ্রাফিক ডিজাইন একটি সৃজনশীল প্রক্রিয়ার কাজ। এই কাজটি করে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে অবশ্যই আপনাকে সৃজনশীল মন মানসিকতার অধিকারী হতে হবে। গ্রাফিক ডিজাইন ক্যারিয়ার গড়তে হলে অবশ্যই নিত্য নতুন ডিজাইন, ট্রেন্ড, ডিজিটাল প্রচারণার ম্যাটেরিয়ালস সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে।

আরো জরুরি বিষয় হল আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইনকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ভালোভাবে অনুশীলন করতে হবে এবং সব সময় প্র্যাকটিসের মাধ্যমে থাকতে হবে।

গ্রাফিক ডিজাইন কে নিজের পেশা হিসেবে নিতে কাজকে ভালোবাসুন, নিত্যনতুন সৃজনশীল আইডিয়া তৈরি করুন, রীতিমতো প্র্যাকটিস করুন, এবং বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করে নিজের কাজ শুরু করে দিন। এখানে আরো একটি বড় বিষয় হচ্ছে ধৈর্য। মনে রাখবেন রাতারাতি কোন কিছু করা সম্ভব নয় তাই আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য্যসহকারে কাজ করতে হবে। আপনি যদি ধৈর্য সহকারে মার্কেটপ্লেসে লেগে থাকেন তাহলে অবশ্যই সফল হবেন। ইনশাল্লাহ

3 thoughts on “গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় করুন মাসে 5000 ডলার। গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? কীভাবে শুরু করবেন”

Leave a Comment

SOHOJINCOME.COM একটি শিক্ষামুলক ওয়েবসাইট। এখানে থেকে যে কোন বিষয় ফ্রিতে শিখতে পারবেন।

মূল ফিচার

সম্পূর্ণ ফ্রি কোর্স

সঠিক ও সহজ গাইডলাইন

লাভজনক ও সেকরেট ফিচার

ইনভেস্ট ছাড়া প্যাসিভ ইনকাম

নিশ্চিত আয়ের নিশ্চয়তা

অল্প সময়ে ইনকাম শুরুর গ্যারান্টি

যোগাযোগ

SOHOJINCOM.COM

ঢাকা, বাংলাদেশ।