ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় 2021- ধাপে ধাপে

বর্তমান সোশল মেডিয়া ওয়েবসাইটের মধ্যে ফেসবুক সবচেয়ে জনপ্রিয়। আপনারা কি জানেন ফেসবুক ব্যবহার করেও যে ইনকাম করা যায়? হ্যাঁ বন্ধুরা আজকের এই টিউটোরিয়ালে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়। ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করার 2021 সালের কিছু আপডেট নিয়ে আজকের এই লেখা টি।

ফেসবুকে মাসে 2.88 বিলিয়ন ইউজার একটিভ থাকে। তাহলে বুঝতেই পারছেন এটি কত বড় একটি সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক। যে কোন নিউজ ফেসবুকের মাধ্যমে ঘন্টায় সারাবিশ্বে পৌঁছে দেয়া সম্ভব। তাছাড়া আমরা প্রতিনিয়ত প্রচুর সময় ফেসবুকে বের করে থাকি শুধু মাত্র বিনোদন, চ্যাটিং, আড্ডা দিয়ে। আমরা প্রতিদিন যে সময়টি ফেসবুকে বিনোদন, চেটিং, আড্ডা দিয়ে বের করে থাকি সেই সময়টাকে কাজে লাগালে আমরা কিন্তু ফেসবুক থেকে ভালো পরিমানে আয় করতে পারবো।

আসলে আমাদের না জানার কারণে আমরা অনেক কিছু থেকে বঞ্চিত। আবার অনেকে এখনও পর্যন্ত মনে করে থাকেন ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায় না। কিন্তু বর্তমানে বেশিরভাগ লোকই জানেন ফেসবুক থেকেও ইনকাম করা যায়। কেননা এখন আর মানুষ আগের মত অজ্ঞ নয়।

ফেসবুক থেকে আয় করার বেশকিছু মাধ্যম রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম কিছু মাধ্যম নিয়ে আমি আলোচনা করব। যে মাধ্যমগুলো সচারাচর ব্যবহার করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়। তাছাড়া এই মাধ্যমগুলো তুলনামূলকভাবে সহজ এবং অল্প সময়ে শেখা সম্ভব।

তো বন্ধুরা আর দেরি না করে আসল আলোচনা আসা যাক……..। এবার আমরা জানবো ফেসবুক থেকে টাকা আয়ের উপায় সহজ ও জনপ্রিয় উপায় সম্পর্কেঃ

ফেসবুক থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়
ফেসবুক থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ফেসবুক পেজে, গ্রুপে, মেসেঞ্জারে, ব্লগ কমেন্ট এ অনেকে প্রশ্ন করে থাকে- ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়? আবার অনেকেই গুগল সার্চ করেও খুঁজতে থাকে ফেসবুক থেকে ইনকাম সম্পর্কে জানার জন্য। আজকের এই টিউটোরিয়ালটি মূলত তাদের জন্য যারা ফেসবুক কে কাজে লাগিয়ে অনলাইন থেকে আয় করতে আগ্রহী।

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার মাধ্যম গুলোর মধ্যে প্রথমেই যে মাধ্যমটি রয়েছে সেটি হল ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম। চলুন আমরা বিস্তারিত জানি ফেসবুক পেজ থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়:

কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার মাধ্যম গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং পপুলার মাধ্যম হলো ফেসবুক পেজ তৈরি করে টাকা আয় করা। আপনি যদি ফেসবুক পেজ তৈরি করে টাকা আয় করতে চান তাহলে আমরা নিচে কয়েকটি মাধ্যম আলোচনা করলাম এই মাধ্যমগুলোর যেকোনো একটি ব্যবহার করেই ফেসবুক পেজ থেকে কিন্তু আপনি টাকা আয় করতে পারবেন।

ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনার পেইজ টি অবশ্যই জনপ্রিয় এবং লাইক সমৃদ্ধ একটিভ পেজ হতে হবে। আপনার পেজ যদি একটিভ না থাকে তাহলে যেকোনো বিষয়ে পেইজে শেয়ার করার পরে সেটি রিচ হবে না। আর আপনারা হয়তো জানেন ফেসবুক পেজে যদি আপনার কোন পোস্ট বা কনটেন্ট রিচ না হয় তাহলে সেই পেজের কোন ভ্যালু থাকেনা।

পড়তে পারেন: কিভাবে ফেসবুক পেজের রিচ বৃদ্ধি করবেন। পেজ একটিভ রাখার কার্যকরি কৌশল।

যাই হোক ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার মাধ্যম গুলো হলো:

ফেসবুক এডস এর মাধ্যমে:

ফেসবুক এডস এর মাধ্যমে আয় করা। আপনার যখন একটি জনপ্রিয় পেজ থাকবে এবং সেই পেজটিতে এক হাজারের বেশি থাকবে। আপনি কিন্তু সেই পেজটিকে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর জন্য তৈরি করে নিতে পারেন।

কিভাবে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় করবেন:

  • সেজন্য আপনাকে একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে।
  • আপনার ওয়েবসাইটটি যখন ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর জন্য উপযুক্ত হবে তখন আপনার পেজটির সাথে সংযোগ করতে হবে।
  • যখনই আপনার ওয়েবসাইটে কোন আর্টিকেল প্রকাশ করবেন সেটি ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ভিউয়ার রা দেখতে পারবে। এবং লেখার মাঝে মাঝে ফেসবুক বিজ্ঞাপন দেখাবে এবং বিজ্ঞাপনে ক্লিক হলেই আপনার একাউন্টে টাকা জমা হতে থাকবে।
  • 100 ডলার হলেই টাকা তুলতে পারবেন।

প্রোডাক্ট বিক্রয়ের মাধ্যমে:

আপনার যদি একটি ভাল মানের একটিভ ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে সেখানেই যেকোনো পণ্য প্রচার প্রচারণা করে অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করে আয় করতে পারেন। বর্তমানে যাদের বড় বড় ফেসবুক পেজ রয়েছে তারা প্রোডাক্ট বিক্রয়ের মাধ্যমে ঘরে বসে প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করছেন খুব সহজেই।

সার্ভিস বিক্রয়ের মাধ্যমে:

আপনার যদি কোন লোকাল সার্ভিস থাকে তাহলে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সেটাকে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আপনার সার্ভিসের জন্য কাস্টমার তৈরি করতে পারেন। যখন ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার সার্ভিস থেকে প্রচার-প্রচারণা করবেন তখন আপনার সার্ভিসের জন্য প্রচুর পরিমাণে কাস্টমার তৈরি হয়ে যাবে এবং আপনি সাথে বিজনেস করতে পারবেন।

যেমন:

  • আপনার যদি কোন হোটেল বা রেস্টুরেন্ট থাকে তাহলে ফেসবুকের মাধ্যমে রেস্টুরেন্টের প্রচার করুন খুব সহজেই দেখবেন আপনার রেস্টুরেন্টে বিভিন্ন খাবারের জন্য অর্ডার আসছে।
  • অথবা আপনার যদি লোকাল ভাবে কোন কার ওয়াশের সার্ভিস থেকে থাকে তাহলে সে সার্ভিস টাকে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রমোট করতে পারেন। তাহলে দেখবেন ফেসবুক পেজের মাধ্যমে মানুষ জেনে যাবে এবং আপনার কাছে অটোমেটিক্যালি প্রচুর কাস্টমার চলে আসবে।
  • আপনার যদি কোন ডায়াগনস্টিক এর সার্ভিস থাকে সেটাও আপনি ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রচার করতে পারেন।
  • মোটকথা যেকোনো সার্ভিস ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার প্রচারণা করে ব্যবসা করা যায় এটি খুব লাভজনক একটি মাধ্যম।

এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে:

আপনি চাইলে যেকোন এফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামের যুক্ত হয়ে তাদের পণ্য বা সার্ভিস আপনার ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে শেয়ার করে সেল করতে পারেন। ফেসবুকের মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চাইলে সবচেয়ে ভালো হয় ডিজিটাল কোন পণ্য বা সার্ভিস নিয়ে মার্কেটিং করলে। কেননা এফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রাম গুলোর মধ্যে ডিজিটাল পণ্য বা ডিজিটাল সার্ভিস রিলেটেড যে সমস্ত প্রোডাক্ট রয়েছে সেগুলোতে বেশি পরিমাণে কমিশন থাকে।

আরও পড়ুন: এফিলিয়েট মার্কেটিং কি? কিভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন?

কোর্স বিক্রয় এর মাধ্যমে:

আপনার যদি অনলাইন ভিত্তিক কোন কোর্স থাকে তাহলে সেটাকে আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে খুব সহজেই সেল করতে পারবেন। আর আপনার যদি কোন অনলাইন ভিত্তিক প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে অনলাইনে অনেক কোর্স রয়েছে যারা এফিলিয়েশনের মাধ্যমে তাদের কোর্স বিক্রি করে। আপনি চাইলে তাদের এফিলিয়েটর হয়ে আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিক্রয় করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই কোর্স করে বিক্রি করতে পারবেন এবং ভালো পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন।

লিড জেনারেশন এর মাধ্যমে:

বিভিন্ন কোম্পানির মোবাইল অ্যাপস তাদের কোম্পানির প্রচারণা অথবা রেজিস্ট্রেশন অথবা মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড এবং ইন্সটল করার জন্য লিড তৈরি করে থাকে। আপনারা চাইলে তাদের লিড গুলোকে আপনার ফেসবুকের মাধ্যমে প্রমোট করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার লিংক থেকে যতগুলো জেনারেট হবে সেগুলো প্রত্যেকটি জন্য আপনাকে পেয়ে করা হবে।

আপনি যদি লিড জেনারেশন করে আয় সম্পর্কে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন: লিড জেনারেশন কি কিভাবে লিড জেনারেশন করে অনলাইন থেকে আয় করা যায়?

পেজ বা গ্রুপ প্রোমোট করার মাধ্যমে:

আপনার যদি থাকে তাহলে আপনি সহজেই অন্যান্য ছোট ছোট গ্রুপগুলোকে আপনার পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে ইনকাম করতে পারেন। এটা সিস্টেম হলো- যখন আপনার বড় কোন পেজ থাকবে তখন বিভিন্ন ছোট ছোট এবং গ্রুপের এডমিন আপনাকে মেসেজ করবে, তাদের পেজ বা গ্রুপ কে প্রমোট করার জন্য। তখন আপনি আপনার প্রাইস সহ তাদের সাথে কথা বলে তাদের পেজ এবং গ্রুপগুলোকে প্রমোট করে দিতে পারেন। বিনিময়ে তাদের কাছ থেকে টাকা নিতে পারেন। বর্তমানে বড় বড় পেজ এর মালিকরা ছোট ছোট এবং গ্রুপ করে প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকে।

প্রোডাক্ট বা ব্র্যান্ড প্রোমোট করার মাধ্যমে:

আপনার ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে যেকোনো ছোট ছোট ব্রেন্ড বা পণ্যকে প্রমোট করতে পারেন। বিভিন্ন প্রডাক্ট বা ব্র্যান্ড কে প্রোমোট প্রতি মাসে অনেক টাকা আয় করা যায়।

ট্রাফিক সেল এর মাধ্যমে:

বর্তমানে ট্রাফিক সেল করে আয় করা একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনার যদি ভালো একটি পেজ থাকে তাহলে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের এডমিনগণ আপনার সাথে যোগাযোগ করবে তাদের ওয়েবসাইটের লিংক আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে শেয়ার করার জন্য। যখন আপনার পেজ থেকে কোন একটি ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করবেন তখন সেখানে অনেক পরিমাণে ট্যারিফ বা ভিজিটর প্রবেশ করবে। আর যখন আপনার পেজ থেকে কারও ওয়েবসাইটে আপনি ভিজিটর পাঠাবেন বিনিময়ে আপনি টাকা নিতে পারেন।

কিভাবে ফেসবুক গ্রুপ থেকে টাকা আয় করা যায়

একটি ভাল মানের ফেসবুক গ্রুপ থাকলে আপনি চাইলে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ফেসবুকের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে, এফিলিয়েট মার্কেটিং করে, ট্রাফিক সেল করে, প্রডাক্ট প্রমোশন করে, সার্ভিস প্রমোট করে, বালির জেনারেশন এর মাধ্যমে আয় করতে পারেন। এছাড়াও ফেসবুক গ্রুপ থেকে আয় করার আরও কিছু মাধ্যম রয়েছে।

গ্রুপ রেন্ট দিয়ে আয়:  আপনার যদি একটি ভাল গ্রুপ থাকে এবং সেটিতে অনেক মেম্বার থাকে তাহলে বিভিন্ন ওয়েব সাইটের এডমিনদের কে সাপ্তাহিক বা মাসিক ভিক্তিতে রেন্ট দিতে পারেন। তখন তারা আপনাকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে টাকা দিয়ে সপ্তাহ বা মাসিক ভিত্তিতে তাদের ওয়েবসাইটের লিংক তাদের সার্ভিস বা অন্যান্য প্রমোশনাল লিংক আপনার গ্রুপের মাধ্যমে প্রচার করবে। এবং আপনি তাদের কাছে সাপ্তাহিক এবং মাসিক হিসেবে একটি আনুপাতিক হারে পেমেন্ট নিতে পারবেন।

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক বড় বড় গ্রুপ হিসেবে পাওয়া যায় যেখানে আপনি খুব সহজেই কিছু টাকার বিনিময়ে এক সপ্তাহ বা একমাস আপনার যেকোন প্রচার-প্রচারণা তোদের গ্রুপের মাধ্যমে করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে তাদের কিছু রেস্ট্রিকশন রয়েছে সেগুলি তারা গ্রুপের নীতিমালায় বলে রাখে এবং সেই রেস্ট্রিকশন গুলো মেনে আপনাকে কাজ করতে হবে অন্যথায় আপনাকে ব্যান করে দেওয়া হবে। আপনিও চাইলে তাদের মতোই কাজ করতে পারেন।

বিস্তারিত এখানে: ফেসবুক গ্রুপ থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়। 

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে টাকা আয়

বর্তমানে ফেসবুকে নতুন একটি ফিচার যুক্ত হয়েছে সেটি হলো ফেইসবুক মারকেটপ্লেস। ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে আপনি চাইলে যেকোনো পণ্য, সার্ভিস, যেকোনো কিছু বেচাকেনা করতে পারেন। এজন্য আপনাকে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করে আপনার পণ্যগুলো মূল্যসহ লিস্টিং করতে হবে। তখন ফেইসবুক মারকেটপ্লেস এর মাধ্যমে আপনার পণ্যটি ছড়িয়ে যাবে হাজারো ব্যবহারকারীর মাঝে। যে সমস্ত ইউজারদের আপনার পণ্যটি প্রয়োজন হবে আপনাকে সরাসরি ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে এবং কথাবার্তার মাধ্যমে পণ্যটি তাদের কাছে সেল করে ব্যবসা করতে পারেন।

বর্তমান সময়ে ফেসবুক পেজ থেকে আয় করা খুবই সহজ এবং সুন্দর একটি সিস্টেম। এটি নিয়ে হাজারো ব্যবসায়ী এবং মার্কেটের ফেইসবুক মারকেটপ্লেস এর মাধ্যমে অনলাইন থেকে ব্যবসা করে ঘরে বসে আয় করছেন এবং তাদের ক্যারিয়ার নিশ্চিত করেছেন।

বর্তমানে ফেইসবুক মারকেটপ্লেস একটি যুগোপযোগী যেখানে খুব সহজেই বিভিন্ন পণ্য বেচাকেনা ব্যবসা করে নিজের ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর মাধ্যমে:

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল হল গুগল এডসেন্স এর মতো ফেসবুকের একটি বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক। আপনার যদি একটি ফেসবুক পেজ বা ভালো একটি ফেসবুক গ্রুপ থাকে তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটকে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর মাধ্যমে মনিটাইজ করে সেখান থেকে খুব সহজেই ঘরে বসে আয় করতে পারবেন।

আপনি যদি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর সকল Partner Monetization Policies মেনে কাজ করতে হবে অন্যথায় আপনার ওয়েবসাইটকে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এ সংযুক্ত করতে পারবেন না।

আর যদি আপনার ওয়েবসাইটটি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর পাউডার মনিটাইজেশন পলিসিজ এর আওতাভুক্ত হয় তাহলে আপনি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর জন্য আবেদন করে খুব সহজেই অনুমোদন পেয়ে যাবেন। আর যখনই আপনি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর এপ্রোভাল পেয়ে যাবেন তখন আপনার ওয়েবসাইটকে ফেসবুকের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মনিটাইজ করতে পারবেন।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে বর্তমানে ভালো পরিমাণে আয় করা সম্ভব। অনেক ইউজার রয়েছেন যারা ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকেন।

আরও পড়ুন: ফেসবুক ইন্সট্যান্ট আর্টিকেল কি? কিভাবে ফেসবুক ইন্সট্যান্ট আর্টিকেল এর মাধ্যমে আয় করবেন?

ফেসবুকে ক্রিয়েটিভ স্টুডিও এর মাধ্যমে:

ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিও হল youtube-এর মত একটি ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম। ইউটিউব যেমন গুগোল এর একটি প্ল্যাটফর্ম তেমনি ফেসবুকের ভিডিও প্লাটফর্ম হল ইউটিউব ক্রিয়েটিভ স্টুডিও।

এখানে যে কোন ইউজার ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিওতে তাদের তাদের ভিডিও শেয়ার করে ইনকাম করতে পারে। ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিও থেকে ইনকাম করতে চাইলে আপনাকে কয়েকটি ধাপ পেরোতে হবে। এবং অবশ্যই ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিও নীতিমালা মেনে আপনাকে কাজ করতে হবে অন্যথায় এখান থেকে আয় করা সম্ভব না।

ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিও থেকে আয় করতে চাইলে যে বিষয়গুলো আপনাকে থাকতে হবে:

  • একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে এবং সেখানে এক হাজারের বেশি লাইক থাকতে হবে।
  • এবং সেখানে আপনার কমপক্ষে তিন মিনিটের ভিডিও পাবলিশ করতে হবে।
  • ভিডিওগুলি অবশ্যই আপনার নিজস্ব রেকর্ডিং ভিডিও হতে হবে। কোনরকমে কপিরাইট ভিডিও থাকা যাবে না।
  • আপনার ভিডিওগুলি লাস্ট 12 মাসে কমপক্ষে 30000 ভিউ হতে হবে। এবং ভিডিওগুলি প্রতি তিন মিনিটের ভিডিওতে কমপক্ষে এক মিনিট করে ভিউ হতে হবে।
  • এবং এই সবগুলি যদি আপনার পেজের মধ্যে থাকে তাহলে ফেসবুক ক্রিয়েটিভ স্টুডিও মনিটাইজ এর মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন। এবং 100 ডলার হলে আপনি যেকোনো ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন।

আরও পড়ুন: ফেসবুক  ক্রিয়েটিভ স্টুডিও কি? কিভাবে ফেসবুক  ক্রিয়েটিভ স্টুডিও থেকে আয় করবেন?

ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে আয়:

যারা ফেসবুকে সবসময় ঘাটাঘাটি করে থাকেন এবং ফেসবুক থেকে আয় করা বিষয় নিয়ে ঘাটাঘাটি করে থাকেন তারা ইতিমধ্যে অবশ্য ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক সম্পর্কে কিছুটা শুনেছেন। আর যদি আপনি ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক সম্পর্কে নাও জেনে থাকেন সমস্যা নেই আমি বলে দিচ্ছি।

ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক হল ফেসবুকের একটি বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক এটি শুধুমাত্র মোবাইল অ্যাপসের জন্য ব্যবহার হয়ে থাকে। অর্থাৎ যারা এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন নিয়ে কাজ করে থাকেন তারা ফেসবুক এর বিজ্ঞাপন হিসেবে ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে থাকেন।

গুগল এডসেন্স যেমন এন্ড্রয়েড এর জন্য এডমোব নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকেন, তেমনই ফেসবুক তাদের বিজ্ঞাপনকে মোবাইলে ব্যবহার করার জন্য ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকে।

আপনি যদি ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর বিজ্ঞাপন কোন এন্ড্রয়েড অ্যাপ আইএসও এপ এর মাধ্যমে ব্যবহার করতে হবে। আপনি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ছাড়া ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আয় করতে পারবেন না। এটি শুধুমাত্র মোবাইল অ্যাপস এর জন্যই প্রযোজ্য।

আরও বিস্তারিত: ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক কি? কিভাবে ফেসবুক অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে আয় করবেন?

ফেসবুক মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করার উপায়

সর্বোপরি আরো একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হল মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করে আয়। অর্থাৎ বিভিন্ন কোম্পানি তাদের বিজনেস পরিচালনা করার জন্য ফেসবুকে মার্কেটিং ম্যানেজার নিয়োগ দিয়ে থাকেন। এবং মার্কেটিং ম্যানেজার ফেসবুকের মাধ্যমে বিজনেস এর যাবতীয় খুঁটিনাটি চ্যাটিং এবং কাস্টমারদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে থাকে।

মোটকথা একটি ব্যবসার ফেসবুকে যাবতীয় টুকিটাকি যে কাজকর্মগুলো আছে তারা যেকোনো একজন একজন ম্যানেজার নিয়ে সেটিকে ম্যানেজ করে থাকে। ফেসবুক ম্যানেজার হিসেবে কাজ করা একজন ফ্রিল্যান্সার এর মতই। এবং যে কোন কোম্পানি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিয়োগ দিয়ে থাকে।

সর্বোপরি আমাদের পরামর্শ:

বন্ধুরা আমরা ইতিমধ্যে ফেসবুক থেকে কিভাবে আয় করা যায় এ ব্যাপারে পূর্ণাঙ্গ একটি আলোচনা করে ফেলেছি। এবং আমি এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদেরকে ফেসবুক থেকে কিভাবে আয় করা যায় এর যাবতীয় টুকিটাকি তথ্য গুলো তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি এই লেখাটি আপনাদের উপকারে এসেছে।

আপনাদের যদি কোন পরামর্শ বা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন। সর্বোপরি আপনাদের কাছে আমার রিকুয়েস্ট আমার এই লেখাটি আপনার যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

 

Leave a Comment